সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান

স্টাফ রিপোর্টার

0

সকল সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে দেশপ্রেমিক জনতা ও মুক্তিযোদ্ধার প্রজন্মদেরকে প্রতিরোধ গড়ার আহ্বান জানিয়েছে ‘আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের’ কেন্দ্রীয় কমিটি।
কেন্দ্রীয় কমিটি আয়োজিত স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে “রণাঙ্গনের স্বপ্ন ও আজকের বাংলাদেশ” শীর্ষক এক অনলাইন আলোচনায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

হেফাজতে ইসলামসহ সকল সাম্প্রদায়িক অপশক্তি, যারা ইসলামের নামে ভাংচুর সহ নানা অপকর্মের মাধ্যমে দেশকে অস্থিতিশীল করতে চায় তাদের বিরুদ্ধে দেশপ্রেমিক জনতা ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে বলে জানায় মুক্তিযুদ্ধের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যরা।

সংগঠনের সভাপতি মো. সাজ্জাদ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অনলাইন সভা পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক রাশেদুজ্জামান শাহীন। এ আলোচনায় অংশ নেন গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় ১৪ দলের অন্যতম নেতা ডা. শাহাদাত হোসেন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন, সংগঠনের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও শহীদ সংসদ সদস্য নুরুল হক হাওলাদারের মেয়ে জোবায়দা হক অজন্তা, যুগ্ম-সম্পাদক আল-আমিন মৃদুল, আহমাদ রাসেল ও প্রকৌশলী এনামুল হক মুনির, প্রযুক্তি সম্পাদক আল ইমরান শিকদার, সংগঠনের সিলেট জেলার সভাপতি আতাউর রহমান, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সভাপতি আবুল বাশার জুয়েল এবং ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্মের সভাপতি রাহাত কামাল।

আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যরা

বক্তারা বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু এবং বাংলাদেশ এক ও অবিচ্ছেদ্য অংশ। একে বিচ্ছিন্ন করে দেখার কোনো সুযোগ নেই। মহান মুক্তিযুদ্ধের ভিত্তি একদিনে গড়ে উঠেনি। জাতির পিতার দীর্ঘ ২৩ বছর আন্দোলন ও সংগ্রামের ধারাবাহিকতায় আমরা স্বাধীনতা অর্জন করতে পেরেছি।’ যারা ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়েছে তাদেরকে আইনের আওতায় আনতে হবে। বিএনপি জামাত জোট পরিকল্পিতভাবে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর আগমনের সময় বিরোধিতা করেছে। এখন সময় এসেছে সকল অপশক্তিকে রুখে দিয়ে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যাওয়ার।