নিষেধাজ্ঞা অমান্য করলে গুনতে হচ্ছে জরিমানা

নিষেধাজ্ঞার তৃতীয় দিন

0

কক্সবাজার সদরে বিভিন্ন পয়েন্টে করোনা প্রতিরোধে সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী জনসচেতনতা বৃদ্ধি ও চলাচলে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতের লক্ষ্যে মাঠ পর্যায়ে কাজ করছে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা। স্বাস্থ্যবিধি না মানলে গুনতে হবে জরিমানা।

প্রায় প্রতিদিন করোনা আক্রান্তের রেকর্ড ভেঙে নতুন রেকর্ড তৈরি হচ্ছে। সরকারের ‘কঠোর বিধিনিষেধ’ আরোপ করার তৃতীয় দিনেও অনেকে মানছেন না পরিবহনে শারীরিক দূরত্ব ও মাস্ক ব্যবহারের নিয়ম।

আজ কক্সবাজারের সকল হোটেল-মোটেল বন্ধ রয়েছে। তবে কিছু রেস্টুরেন্ট খোলা থাকলেও নিষেধাজ্ঞার কারনে পার্সেল করে নিতে হচ্ছে ক্রেতাদের।

কক্সবাজার সুগন্ধা পয়েন্টে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকালে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাদিয়া সুলতানা বলেন, পুরো শহরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে টহল টিম কাজ করছে। যে দোকনাটি খোলা রাখার কথা না সেটি বন্ধ করার ব্যবস্থা করছি। যে সকল লোকজন নিষেধাজ্ঞা মানছেন না তাদের বুঝানোর চেষ্টা করছি, কি জন্য জনস্বার্থে এই নিষেধাজ্ঞা প্রয়োজন সেটা বুঝানোর চেষ্টা করছি। জনসচেতনতা খুবই জরুরী নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়ন করার জন্য। সবাইকে সচেতন হতে হবে, সবাইকে সহযোগিতা করতে হবে।

এসময় কয়েকজন পর্যটক নিষেধাজ্ঞা না মেনে কক্সবাজার সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ করলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দণ্ডবিধি অনুযায়ী তাদেরকে জরিমানা করেন।