শাহ আলম চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ মেম্বারদের

0

কক্সবাজার উখিয়ার হলদিয়া পালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ‘শাহ আলমের’ বিরুদ্ধে নানা দূর্নীতির অভিযোগ এনে কক্সবাজার প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন পাঁচ ইউপি সদস্য।

আজ বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) দুপুরে এই সংবাদ সম্মেলনে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ক্ষমতায় অপব্যবহার করে ইউপি সদস্যদের অসহায় করে রাখার অভিযোগ আনা হয়।
মেম্বাররা অভিযোগ করেন, এর ফলে তারা জনগণকে সাহায্য করতে পারছেন না।

সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলমের ছোট ভাই চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ শাহ আলমের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে, তিনি গত পাঁচ বছর ধরে পঙ্গু ভাতা, বয়স্কভাতা,বিধবা ভাতা, সরকারি প্রজেক্ট, এনজিও ঠিকাদারিতে অনিয়ম ও ভিজিডি চালের কার্ড এবং সরকারী সহযোগিতাকে নিজ ব্যক্তি সহযোগিতা বলে প্রচার করেছেন।

এনজিওর বিভিন্ন সহযোগিতা ইউপি সদস্যদের সাথে আলোচনা করে গরীব-দুঃখি-অসহায় মানুষদের দেওয়ার কথা থাকলেও তিনি তা নিজ বাড়িতে নিয়ে নিজ আত্মীয় স্বজন ও সমর্থকদের বিতরন করেছেন বলে অভিযোগ করেন এক ইউপি সদস্য।

এছাড়া, বিভিন্ন সহযোগীতার আশ্বাস দিয়ে জনগণের কাছ থেকে টাকা নেওয়ার কথাও বলা হয় সংবাদ সম্মেলনে।

এছাড়া জানানো হয়, শাহ আলমের শ্যালক মনির আহম্মদ ভাইদের ক্ষমতায় এলাকায় মানুষদের ভয় ভীতি প্রদর্শন ও চাঁদাবাজি, জমিদখল সহ নানা অপকর্মে জড়িত বলেছেন নাম জানাতে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি।

কারন চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে কথা বললেই মামলা-হামলা সহ নানা হয়রানি শিকার হয় জনগন।

আরো বলা হয় চেয়ারম্যান গত পাঁচ বছরে বিশাল ধন-সম্পদের মালিক হয়েছেন। এই বিষয়ে তদন্ত করতে দুর্নীতি দমন কমিশন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়, কক্সবাজার জেলা প্রশাসন, উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট লিখিত অভিযোগের মাধ্যমে তদন্ত পূর্বক যথাযত ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানান তারা।

একজন নারী ইউপি সদস্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে অভিযোগ করে বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান তাকে ‘বেডি’ বলে সম্মোধন করে হেয় প্রতিপন্ন করেন সব খানে। এবং তার পরিবারকে প্রতিনিয়ত সামাজিকভাবে হয়রানি করে আসছেন।
তিনি জানান, শাহ আলমের সমর্থকরা তার ফেসবুকে নানা হয়রানি ও মানহানিকর মন্তব্য করে তাকে হেনস্তা করছে।