মুক্তিযোদ্ধাদের বেসামরিক গ্যাজেট পূণ যাচাই বাছাইয়ের নির্দেশ

0

যে সকল জেলায় বেসামরিক গ্যাজেটে মুক্তিযোদ্ধারদের যাচাই-বাছাই করে পূণরায় তালিকা  প্রকাশ করা হয়নি তাদের আবার যাচাই বাছাইয়ের আওতায় আনতে বলা হয়েছে।

জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল এর ৭৫ তম  সভায় পূর্বের যাচাই-বাছাই প্রতিবেদন বাতিল করে নতুন কমিটি করে দেওয়া হয়েছে।

এতে করে বেসামরিক বীর মুক্তিযোদ্ধাদের পূণরায় যাচাই-বাছাইয়ের আওতায় এনে ১৫ জুলাই এর মধ্য প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

২৬ মার্চ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করার কথা থাকলেও তা প্রকাশ হয়নি।

‘জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল আইন, ২০০২’ এর ৭ (ঝ) ধারার ব্যত্যয় ঘটিয়ে জামুকার সুপারিশ ছাড়া যাদের নাম বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে বেসামরিক গেজেটে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে, তাদের মধ্য থেকে ৩৯ হাজার ৯৬১ জনের তালিকা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশ হয়।

তাদের পূণরায় যাচাই বাছাইয়ের জন্য গত বছর, বেসামরিক গ্যাজেট যাচাই-বাছাই নির্দেশিকা ছক ২০২০ প্রকাশ হয়।

এর পেক্ষিতে ২০২১ সালের দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে যাচাই বাচাই শেষে দেশে ৫ হাজার ৫০০ এর বেশি যাচাই–বাছাই কমিটি থেকে প্রতিবেদন পায় জামুকা।

কিন্তু জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল এর ৭৫ তম  সভায় সেই প্রতিবেদন বাতিল করে নতুন কমিটি করে দেওয়া হয়। এতে করে বেসামরিক বীর মুক্তিযোদ্ধাদের পূণরায় যাচাই-বাছাইয়ের আওতায়   আনতে বলা হয়।

জামুকার সুপারিশ ছাড়া যাঁদের নাম বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে বেসামরিক গেজেটে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে—এমন ৩৮ হাজার ৩৮৬ জনের তালিকা ৩০ জানুয়ারি যাচাই-বাছাই করা হবে। তাঁদের তালিকা গতকাল ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে।

যাচাই-বাছাইয়ের আওতাভুক্ত তালিকা ও এ-সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট (www.molwa.gov.bd) এবং জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের ওয়েবসাইটে (www.jamuka.gov.bd) পাওয়া যাবে।