ইলিশের আকার ছোট জেলেরা হতাশ

0

দুই মাসের বেশি সময় পর সাগরে নেমে বড় সাইজের ইলিশ না পেয়ে হতাশ অনেক জেলে। প্রতিকূল আবহাওয়ায় সাগর উত্তাল হওয়ার কারনে অধিকাংশ জেলে সাগরে যেতে পারেননি।

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কিছু কিছু বোট সাগরে গেলেও প্রত্যাশা অনুযায়ী মাছ পায়নি তারা। জেলেরা বলেছে মাছের আকার এখনো ছোট। দশ শতাংশের মতো মাছ বড় হয়েছে।

এক কেজির বেশি ওজনের মাছ বাজারে খুব একটা দেখা যায়নি। এদিকে, জেলেদের পক্ষ থেকে মাছ শিকার বন্ধ রাখার সময় নিয়ে নতুন করে চিন্তাভাবনা করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

মৎস্য অধিদপ্তর সূত্র জানিয়েছে, গত ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত ৬৫ দিন সাগরে মাছ শিকার বন্ধ ছিল। ২৩ জুলাই মধ্যরাত থেকে মাছ ধরা উন্মুক্ত করা হয়। উন্মুক্ত করার সাথে সাথে হাজার হাজার জেলে সাগরে মাছ শিকারে যাওয়ার প্রস্তুতি নেন। কিন্তু আবহাওয়া প্রতিকূল থাকায় জেলেদের বেশিরভাগ সাগরে যেতে পারেননি। কিছু কিছু জেলে উপকূলের কাছাকাছি এলাকায় মাছ শিকারে যান।

গতকাল সকালে সাগর উত্তাল থাকায় তারা ফিরে এসেছেন। গতকাল শনিবার ফিশারিঘাটসহ বিভিন্ন বাজারে বিপুল পরিমাণ ইলিশ বিক্রি হতে দেখা গেছে। চট্টগ্রামের জেলেদের পাশাপাশি সন্দ্বীপ ও নোয়াখালী অঞ্চল থেকেও বিপুল পরিমাণ মাছ বাজারে এসেছে।

তবে গতকাল সকালে বাজারে ওঠা মাছের আকার প্রত্যাশিত নয়। তুলনামূলক ছোট মাছ ধরা পড়ছে। গতকাল বাজারে ৪শ-৫শ গ্রাম ওজনের ইলিশ প্রতি মণ ২৬ হাজার টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। খুচরা বাজারে বিক্রি হয়েছে ৭শ-৮শ টাকায়। কিছু কিছু মাছ বড় সাইজের দেখা গেছে।

বড় মাছগুলো ১২শ-১৩শ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে।
আবহাওয়া স্বাভাবিক না হলে সাগরে মাছ শিকার করতে যাওয়া সম্ভব হবে না বলে গতকাল একাধিক বোট মালিক জয় বাংলাকে  জানিয়েছেন।