বান্দরবানের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

0

টানা বর্ষণে প্লাবিত হয়েছে বান্দরবানের লামা, আলিকদম, থানচি ও নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার অধিকাংশ নিচু এলাকা।

লামা ও আলিকদম উপজেলার সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। প্লাবনে থানচি উপজেলা সদরের সাথে তিন্দু ও রেমাক্রি ইউনিয়নের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, জেলার সাঙ্গু ও মাতামুহুরী নদীর পানি এখনো বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড়ে বসবাসকারীদের নিরাপদ স্থানে যেতে প্রচারণা চালাচ্ছে প্রশাসন। দুর্গতদের জন্য খোলা হয়েছে ১৪০ টি আশ্রয়কেন্দ্র।

আলিকদম উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা সায়েদ ইকবাল জানান, প্লাবিত হয়ে লামা ও আলিকদম এই দুই উপজেলার সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। প্লাবিত হয়েছে নিম্নাঞ্চল । বসতবাড়ি ও দোকানপাটে পানি ঢুকেছে। সাধারণ মানুষকে গতকাল রাতেই আশ্রয়কেন্দ্রে নেয়া হয়েছে। গতকাল রাতে আশ্রয়কেন্দ্রে থাকা মানুষদের খিচুড়ি দেয়া হয়।

স্থানীয় ও জনপ্রতিনিধি সূত্র বলছে, প্লাবিত হয়েছে বান্দরবানের সদরের আর্মি পাড়া , ইসলামপুর, বনানি সমিল এলাকা। লামায় সোমবার থেকে টানা বৃষ্টি বর্ষণের ফলে উপজেলায় অবস্থিত নদী, খাল ও ঝিরির পানি ফুঁসে উঠে প্লাবিত হয়েছে পৌরসভা এলাকার নয়াপাড়া, টিএন্ডটি পাড়া, বাসস্ট্যান্ড, বাজারপাড়া, লামা বাজারের একাংশ, গজালিয়া জিপ স্টেশন, চেয়ারম্যান পাড়ার একাংশ, বড় নুনারবিলপাড়া , ছোট নুনারবিলপাড়া, উপজেলা পরিষদের আবাসিক কোয়ার্টার, থানা এলাকাসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের নিচু এলাকা।

এছাড়াও নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার অনেক গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। থানচি উপজেলার বলিবাজার ইউনিয়নের হিন্দুপাড়া ও বাগানপাড়াসহ বিভিন্ন পাড়া পানিতে তলিয়ে গেছে। যাতায়াতের জন্য অনেকেই নৌকা ও বাঁশের ভ্যালা ব্যবহার করছে।