দেশে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত ৯৮ শতাংশ, চট্টগ্রামে ৯৩ শতাংশ

0

চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের ৯৩ শতাংশই করোনার ভয়াবহ ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের বলে জানিয়েছেন একদল গবেষক। শহর ও গ্রামাঞ্চলে এ ভ্যারিয়েন্ট সমানভাবে ছড়িয়েছে বলে জানান তাঁরা।

দেশে করোনায় আক্রান্ত ৯৮ শতাংশ রোগীর শরীরেই ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ।

বিস্তারিত : দেশে করোনাক্রান্তের ৯৮ শতাংশ ডেল্টা ভ্যারিয়্যান্ট 

শুক্রবার (৬ আগস্ট) গবেষকদলের প্রধান চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও অ্যানিমেল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের (সিভাসু) উপাচার্য ড. গৌতমবুদ্ধ দাশ জয় বাংলাকে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, গত ১ জুলাই থেকে ১৯ জুলাই চট্টগ্রাম নগরের ১৫ এবং বিভিন্ন উপজেলার ১৫ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। যার মধ্যে ১২ জন পুরুষ ও ১৮ জন নারী। এরপর এ ৩০ জনের নমুনা বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদে (বিসিএসআইআর) পাঠানো হয়।

বিসিএসআইআরের দুই গবেষক ড. মো. সেলিম খান ও ড. মো. মোরশেদ হাসান সরকার তত্ত্বাবধানে নমুনাগুলোর জিনোম সিকোয়েন্সিং বা পূর্ণাঙ্গ জীবনরহস্য উন্মোচন করা হয়।

জিনোম সিকোয়েন্সের ফলাফলে দেখা গেছে, মোট ৩০ জনের নমুনার মধ্যে ২৮ জনই ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত। শতকরা হিসেবে যা ৯৩ শতাংশ। আবার এদের মধ্যে ১৪ জন নগরের বাসিন্দা এবং ১৪ জন বিভিন্ন উপজেলার। বাকি দুজনের মধ্যে নগরের কোতোয়ালি থানার পাথরঘাটা এলাকার এক বাসিন্দা আলফা ভ্যারিয়েন্ট (যুক্তরাজ্য) এবং রাঙ্গুনিয়া উপজেলার এক বাসিন্দা করোনাভাইরাসের উৎপত্তিস্থল চীনের উহানের ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত বলে জানা গেছে।

গবেষণায় দেখা গেছে, নমুনা নেয়া ৩০ জনের মধ্যে ১৫ জনকে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিতে হয়েছে।

জানতে চাইলে ড. গৌতমবুদ্ধ দাশ জাগো নিউজকে বলেন, করোনার অতিউচ্চসংক্রমণশীল ভারতীয় ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট চট্টগ্রামের শহর ও গ্রামাঞ্চলে সমানভাবে ছড়িয়েছে। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট সাধারণত অন্যান্য ভ্যারিয়েন্টের চেয়ে ৪০ গুণ বেশি সংক্রামক।