আফগান যুদ্ধ শেষ, সহায়তায় ৬০ দেশের যৌথ বিবৃতি

0

তালেবানের নিয়ন্ত্রণে আফগানিস্তান। রাজধানী কাবুলে তালেবান যোদ্ধাদের প্রবেশের পর আতঙ্কিত জনপদে পরিণত হয়েছে পুরো নগরী।

২০ বছর ধরে চলা যুদ্ধের অবসান হয়েছে, কাবুলে ফিরে আফগান যুদ্ধ শেষ, এমন ঘোষণা দিয়েছে সশস্ত্র গোষ্ঠী তালেবান। বিশ্বের ৬০টির বেশি দেশ আফগানদের সহায়তায় এক যৌথ বিবৃতি দিয়েছে।

আফগানিস্তানে তালেবানের হাতে প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনির সরকারের পতন নিশ্চিত হয়ে গেছে। গতকাল রোববার তালেবান যোদ্ধারা রাজধানী কাবুলে প্রবেশের পর দেশ ছেড়েছেন আশরাফ গনি।

যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য এবং অন্যান্য দেশ তাদের দূতাবাসগুলো থেকে কর্মীদের সরিয়ে নিচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, কাবুল বিমানবন্দরে বিশৃঙ্খলা দেখা দিয়েছে, টারমাকে পদদলিত হয়ে আহত হবার ঘটনা ঘটেছে।

তালেবান মুখপাত্র মোহাম্মদ নাইম আফগান যুদ্ধ অবসানের ঘোষণা দিয়ে বলেন, তাদের শাসন পদ্ধতি ও কাঠামো শিগগিরই স্পষ্ট করা হবে।  কোনও কূটনৈতিক কাঠামো কিংবা তাদের কোনও কার্যালয়কে লক্ষ্যবস্তু বানানো হয়নি। সব কূটনীতিক মিশন এবং নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে বলেও প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। খবর রয়টার্সের।

তালেবানের এই মুখপাত্র আরও বলেন, আমরা যা চেয়েছিলাম সেই লক্ষ্যে পৌঁছেছি, দেশের স্বাধীনতা ও জনগণের মুক্তি। তিনি আরও বলেন, তালেবান মনে করে না বিদেশি কোন বাহিনী আফগানিস্তানে তাদের ব্যর্থতার পুনরাবৃত্তি ঘটাবে।

আফগান প্রেসিডেন্ট প্যালেস নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার পর এবং মার্কিন সেনারা দেশটির মাটি ছাড়ার পর এমন ঘোষণাই দিল দীর্ঘদিন ধরে লড়াই চালিয়ে যাওয়া তালেবান।

সূত্র- বিবিসি

কাবুল এয়াপোর্টে যখন হাজার হাজার মানুষ দিশেহারা হয়ে ঘুরছে তখন তাদের কথা না ভেবেই দেশ ছাড়েন দেশটির প্রেসিডেন্ট আশরাফ গানি। ফলে তীব্র সমালেচনার মুখে পড়েছেন গানি। যদিও তিনি বলেছেন, রক্তপাত যেন না হয় সেকারণেই দেশ ছেড়েছেন।

 এক বিধ্বংসী সামরিক অভিযানে ২০০১ সালে তালেবানকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর গত ২০ বছর ধরে আফগানিস্তানের সামরিক নিয়ন্ত্রণ ধরে রেখেছিল যুক্তরাষ্ট্র ও তার নেটো মিত্ররা। কিন্তু আজ পরিস্থিতি সম্পূর্ণ ভিন্ন।