আজ ২১ আগস্ট: নৃশংস হত্যাযজ্ঞের দিন

0

আজ শনিবার ২১ আগস্ট, দেশের ইতিহাসে নৃশংসতম হত্যাযজ্ঞের ভয়াল দিন। ইতিহাসের ভয়াবহ গ্রেনেড হামলার ১৭তম বার্ষিকী।

২০০৪ সালের এই দিনে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় থাকাকালে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে দলটির সমাবেশে বর্বরোচিত গ্রেনেড হামলা করা হয়েছিল।

সেই ভয়াবহ দিনে আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের সহধর্মিণী আইভি রহমানসহ দলের ২২ জন নেতা-কর্মী প্রাণ হারায়।

গ্রেনেডের স্প্লিন্টারের আঘাতে প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকসহ আহত হন পাঁচ শতাধিক নেতা-কর্মী। আজও সে আঘাত নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন অনেকে।

গ্রেনেড হামলায় সেদিন প্রাণে বেঁচে গিয়েছিলেন তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওই ঘটনায় দলীয় নেতা-কর্মীরা মানববর্ম রচনা করে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে রক্ষা করে।

রাজনীতি পর্যবেক্ষকরা মনে করেন, আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বশূন্য করতে সংগঠনের সভাপতি বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাসহ দলের প্রথম সারির জাতীয় নেতাদের হত্যার উদ্দেশ্যে ওই ঘৃণ্য হামলা চালায় ঘাতকচক্র।

আগস্ট উপলক্ষে শুক্রবার (২০  আগস্ট) দেয়া এক বাণীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন,

স্বাধীনতাবিরোধী সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী এবং উন্নয়ন ও গণতন্ত্রবিরোধী চক্র এখনো বিভিন্নভাবে সোচ্চার আছে। এই অপশক্তির যেকোনো অপতৎপরতা-ষড়যন্ত্র ঐক্যবদ্ধভাবে মোকাবিলা করার জন্য সব সময় প্রস্তুত থাকতে হবে।

তিনি আশা করেন, সকল আইনি বিধিবিধান ও প্রক্রিয়া অনুসরণ করে যত দ্রুত সম্ভব ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় রায় কার্যকর হবে।