ভাসানচরে জাতিসংঘ যুক্ত হওয়ায় স্থানান্তরিত রোহিঙ্গাদের নিয়ে কাজ করা সহজ হবেঃ জেসমিন প্রেমা

0

কক্সবাজারের মতো ভাসানচরেও বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের নাগরিকদের (রোহিঙ্গা) মানবিক সহায়তা দেবে জাতিসংঘ। এজন্য জাতিসংঘের সঙ্গে বাংলাদেশ সরকারের একটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই হয়েছে।

শনিবার (৯ অক্টোবর) সচিবালয়ে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোহসীন ও বাংলাদেশে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা ইউএনএইচসিআর-এর প্রতিনিধি ইয়োহানেস ভন ডার ক্লাও চুক্তিতে সই করেন।
এ সমঝোতা স্মারক বিষয়ে উখিয়া-টেকনাফ ও ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের নিয়ে কাজ করা বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ‘সমাজ কল্যাণ ও উন্নয়ন সংস্থা’ (স্কাস) চেয়ারপার্সন জেসমিন প্রেমা প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেন, “ভাসানচরে রোহিঙ্গা স্থানান্তরের বিষয়ে সরকারের সহযোগী সংস্থা হিসাবে স্কাস শুরু থেকে কাজ করে আসছে।
ইতিমধ্যে স্কাস ভাসানচরে জরুরি ত্রাণ সহায়তা সামগ্রী বিতরণসহ কয়েকটি প্রকল্প সফলভাবে শেষ করেছে। বর্তমানে ভাসানচরে স্কাসের শিক্ষা ও জীবিকায়ন নিয়ে দু’টি প্রকল্প চলমান রয়েছে। যা স্কাস নিজস্ব তহবিল থেকে ব্যয় করে আসছে। ভাসানচরে সরকার নতুন করে জাতিসংঘকে যুক্ত করাতে ঔখানে স্থানান্তরিত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীদের নিয়ে কাজ করা এখন অনেক সহজ হবে।কারণ জাতিসংঘ এখন সহযোগীতা করবে।যা এতদিন স্থানীয় এনজিও গুলো সরকারের পাশা পাশি নিজেদের তহবিল থেকে করে আসছিল। সরকার এবং জাতিসংঘের বর্তমান উদ্যোগকে আমি স্কাসের পক্ষ থেকে স্বাগত জানাচ্ছি”।তিনি বিষয়টিকে বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ়চেতা নেতৃত্ব ও কূটনীতিক নীতির সাফল্য বলেও দাবী করেন।তিনি জাতিসংঘের সাথে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরে জড়িত সকল পক্ষকে ধন্যবাদও জানান।