সাংবাদিক মারধরে জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলা করবে চবি প্রশাসন

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সদস্য দোস্ত মোহাম্মদের উপর হামলার ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলা ও স্থায়ী বহিষ্কারের আশ্বাস দিয়েছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার।

মঙ্গলবার (২০ জুন) দুপুরে চবির প্রশাসনিক ভবনের সামনে মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এ কথা বলেন চবি উপাচার্য। মানববন্ধনে জড়িতদের বিচারের দাবিতে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম বেঁধে দিয়েছে চবিসাস।

গতকাল সোমবার রাতে চায়ের দোকানে চেয়ারে বসাকে কেন্দ্র করে দোস্ত মোহাম্মদের মুখে গরম চা মেরে দেন ছাত্রলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক খালেদ মাসুদ। এসময় সাংবাদিক পরিচয় দিলে উল্টো বেধড়ক পেটে লাথি মারতে থাকে ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছাত্রলীগ কর্মীরা।

 

সংগঠনের প্রচার, প্রকাশনা ও দপ্তর সম্পাদক মোহাম্মদ আজহারের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য দেন চবিসাসের সাবেক সভাপতি সৈয়দ বাইজিদ ইমন, ইমরান হোসাইন।

এতে বক্তব্য রাখেন চবিসাস সভাপতি মাহবুব এ রহমান, সাধারণ সম্পাদক ইমাম ইমু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইফতেখারুল ইসলাম, নবাব আব্দুর রহমান ও সমিতির সদস্য মারজান আক্তার।

প্রশাসনিক ভবনের সামনে মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি করছে চবি সাংবাদিক সমিতি

 

মানবন্ধনে চবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি মাহবুব এ রহমান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকদের উপর হামলার ঘটনা নতুন নয়। বিচারহীনতার সংস্কৃতি অপরাধীদের সাহস জুগিয়েছে। চাকসু না থাকায় সাংবাদিকরা ২৭ হাজার শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছে সাংবাদিকরা। সাংবাদিকের উপর হামলা মানে পরোক্ষভাবে সকল শিক্ষার্থীদের উপর হামলার নামান্তর। আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছি।